February 21, 2024

রাতের রেলগাড়িতে ছায়াপথে ভ্রমণ | লেখক বিপ্রদাশ বড়ুয়া

  • রাতের রেলগাড়িতে ছায়াপথে ভ্রমণ
    লেখকঃ বিপ্রদাশ বড়ুয়া
    প্রকাশনীঃ অ্যাডর্ন পাবলিকেশন
    মূল্যায়নঃ ৮.৫/১০

“…,আমাদের সম্পর্কিত সবকিছু-আমাদের শরীর,আমাদের চিন্তা-ভাবনা,এবং ছায়াপথ বা স্বর্গের নদী,এবং এই রেলগাড়ি,এবং ইতিহাস-সবকিছু আমরা যেমন তাদের অনুভব করি ঠিক সেরকম।আমাদের অনুভবই আসল কথা,অনুভূতিই তোমাকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে।…….”
-রাতের রেলগাড়িতে ছায়াপথে ভ্রমণ।

নিসর্গবিদ,ভ্রমণপিয়াসী,কথাসাহিত্যিক বিপ্রদাশ বড়ুয়ার লেখার সাথে আমার পরিচয় অষ্টম শ্রেণির পাঠ্যবইয়ে, মংডুর পথে ভ্রমণকাহিনী পড়ে।গতবছর তাঁর লেখা বইয়ের সন্ধান করতে গিয়ে নজরে আসে ’রাতের রেলগাড়িতে ছায়াপথে ভ্রমণ’ নামের কল্পবিজ্ঞানের বইটি।ইচ্ছে ছিল রকমারি থেকেই অর্ডার দিয়ে কিনে ফেলব।বিধি বাম।নট -এভেইল্এবল লেখা।হবে নাই বা কেন।প্রথম প্রকাশ ২০০০ সালে,তারপর অ্যাডর্ন পাবলিকেশন প্রকাশ করে ২০১৩ সালে।সেও ৭ বছর আগের কথা।বইটি রিপ্রিন্ট না হলে পাওয়া মুশকিল।কিন্তু অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে অবশেষে কিনলুম এবছর। Chandradeep অনলাইন বই বিপণিকে ধন্যবাদ বইটি সংগ্রহ করে দেওয়ার জন্য। একবার পড়াতেই শেষ করলুম।১টি পাতা থেকে অপর পাতায় যাচ্ছি,পড়ছি,আর স্বপ্নের জগতে ঘুরছি।কল্পবিজ্ঞানের গল্পে তথ্য আর কল্পনার এমন সম্মিলন অবাক করেছে।লেখক বইটি kenji Miyajawa এর Night Train To The Stars অবলম্বনে লিখেছেন।অবলম্বনে রচিত হলেও দেশীয় প্রেক্ষাপট ভালো লেগেছে।পার্বত্য অঞ্চলের মোহময় প্রাকৃতিক পরিবেশে বেড়ে ওঠা স্কুল পড়ুয়া বকুলের দৃষ্টিতে এগিয়েছে কাহিনী।মোট ৭ টি পরিচ্ছেদ নিয়ে গল্পটি লিখিত,যার প্রথম ৩টি পরিচ্ছেদ কাহিনীর আখ্যানভাগ গড়ে তুলেছে।বকুল তার ক্লাস শেষে কাজকর্ম শেষ করে রাতে ঘুরতে বেরোয়,উদ্দেশ্য ছায়াপথের উৎসব দেখবে।সে আরেকটু ভালো করে ছায়াপথ,আকাশের তারার ফুল দেখার জন্যে সীতাকুন্ড পাহাড়ে উঠে যায়।সেখানে শুয়ে শুয়ে সে অবলোকন করতে থাকে আকাশের মধুর নক্ষত্ররাজি,স্বর্গীয় নদী আকাশগঙ্গার শুভ্র স্রোতধারা।হঠাৎ সে নিজেকে আবিষ্কার করে রেলগাড়িতে,ছায়াপথের রেলগাড়ি।সে কি স্বপন দেখছে,নাকি বাস্তব?সঙ্গী আবার তারই বন্ধু জাহিদ।পথে আরো অনেকের সাথে তার দেখা হয়।সে রেলগাড়ির জানালা দিয়ে দেখতে থাকে স্বর্গীয় নদী আকাশগঙ্গার সুন্দর স্রোতধারা,কালপুরুষের দৃশ্য।বকমন্ডলের সাদা বকের উড়ে চলা।সে স্বপ্নের জগতে ছায়াপথের টিকিট নিয়ে ঘুরতে থাকে রাতের রেলগাড়ি চড়ে।হয়তো সে বাস্তবেই আছে,স্বপ্ন জগতকে উপলব্ধি করার এক ভিন্ন,গুপ্ত মাধ্যম।শেষটা একটু বিয়োগাত্মক, স্বপ্ন থেকে বাস্তবে এসে জানতে পারে তার বন্ধুকে ছায়াপথে ছাড়া আর কোথাও পাওয়া যাবে না।বাকিরা কেউ না জানলেও,সে সত্যিটা জানত।

যারা আকাশের তারামণ্ডল দেখতে ভালোবাসেন,নিকষ কালো রাতের ঝিকিমিকি উজ্জ্বল তারাদের দেখে যাদের নক্ষত্রের জগতে হারিয়ে যেতে ইচ্ছে করে,তারা বইটি পড়ে আনন্দ পাবেন।কল্পনার রাতের রেলগাড়িতে চড়ে বকুল ঘুরে আসতে পারেন ছায়াপথ,নীহারিকা বা তারামণ্ডলের পাশ দিয়ে।

©পার্থিব রায়
২৬-১-২০২১
খুলনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *