বাজান লেখক : ইকবাল খন্দকার | Bajan by Iqbal Khondokar books (pdf short)

Title বাজান
Author ইকবাল খন্দকার
Publisher বর্ষাদুপুর
Quality হার্ডকভার এবং সর্ট পিডিএফট
ISBN 9789849404575
Edition 1st Published, 2020
Number of Pages 128
Country বাংলাদেশ
Review Credit 💕 Harun Ar Rashid
বাজান লেখক : ইকবাল খন্দকার | Bajan by Iqbal Khondokar books (pdf short)
Cover image : বাজান – ইকবাল খন্দকার

বাজান‘ মূলত গ্রামীণ পটভূমিতে লেখা এক নিম্নমধ্যবিত্ত সংসারে পিতৃত্বের স্বাদ পেতে মরিয়া একটি সহজ-সরল পরিবারের গল্প। যার লেখক : ইকবাল খন্দকার স্বামী তারা মিয়ার পিতৃত্বের তৃষ্ণা মেটাতে চল্লিশোর্ধ নারী সুফিয়ার অবিরত সংগ্রামের এক নিখুঁত গল্প লেখক অত্যন্ত চমৎকারভাবে ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন।

বিধির চিরায়ত বিধানের বেড়াজালে বন্দী হয়ে উপযুক্ত বয়সে মা হতে পারেনি সুফিয়া। এ নিয়ে স্বামী তারা মিয়ার আক্ষেপের শেষ নেই। সময় গড়িয়ে যাওয়ার সাথে পাল্লা দিয়ে তারা মিয়ার অস্থিরতা বৃদ্ধি পেতে থাকে। দুঃখ কষ্টের সংসারে খেয়ে না খেয়ে জীবননৌকা প্রায় স্বাভাবিক গতিতে চলতে থাকলেও মাঝে মধ্যেই ছন্দপতনের নিঃশব্দ পদচারণায় বাধাগ্রস্থ হয় সুফিয়া তারা মিয়ার দাম্পত্য জীবন। সন্তানের মুখে বাজান ডাক শোনার স্বপ্নে বিভোর তারা মিয়া সিদ্ধান্ত নেয় দ্বিতীয় বিয়ে করার। খবর শোনে সুফিয়ার হৃদয়ে বেজে উঠে স্বামীর অধিকারে ভাগ বসানোর করুণ সুর। 
তারা মিয়ার মতো সুফিয়ারও আক্ষেপের কমতি নেই। মাতৃত্বের স্বাদ আর অপয়া অভিযোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার ব্যাকুলতায় কতজনের কাছে কতভাবেই না ধর্না দেয় সুফিয়ারা!! নগদ টাকা, কেজি কেজি চাল, মাজারে শিরনি দেয়া থেকে শুরু করে কত কিছুই না করতে থাকে তারা। অবশেষে মুখ তুলে তাকায় নিয়তি। চামড়ায় ভাঁজ পড়ে যাওয়া চুয়াল্লিশ বছরের নারী সুফিয়ার ঘর আলোকিত করে পুত্র সন্তানের জন্ম হয়। 

জনপ্রিয় কিছু ব্লগ আর্টিকেল

প্রায় শেষ বয়সে বাবা হওয়ার আনন্দে উদ্বেলিত তারা মিয়া। তাও আবার পুত্র সন্তানের বাবা। সকালটা যেন তারা মিয়ার কাছে ঈদের সকালের ন্যায় মনে হয়। মনের অজান্তে বেসুরা গলায় দুকলি গানও প্রসব করে তারা মিয়ার কন্ঠনালী ভেদ করে। শখ করে পুত্রের নাম রাখে আলী হোসেন। মাত্র তো আর কটা দিন। অতঃপর আলী হোসেন যখন বাজান বলে তারা মিয়াকে ডাকবে, তখন দুনিয়াতে আর কোনো আক্ষেপ থাকবে না। 
তারা মিয়া যখন সদ্যপ্রসূত পুত্র সন্তান আলী হোসেনকে নিয়ে কল্পনার ক্যানভাসে নানাবিধ সুখছবি অঙ্কন করে যাচ্ছে, ঠিক তখনই চাচীর মুখে এক ভয়াবহ সংবাদে থমকে দাঁড়ায় হৃদয়ের ক্যানভাসে এঁকে যাওয়া তারা মিয়ার সুখছবি। 
সুফিয়ার জীবনে আবারও নেমে এলো চিরায়ত সেই বিরহের জ্বালা। শক্ত হয় সুফিয়া। দৃঢ় প্রতিজ্ঞায় স্বীয় হৃদয়কে আবদ্ধ করে সে। এতো সহজে থমকে যাবে না। প্রয়োজনে ভেঙ্গে যাবে, তবুও মচকাবে না। স্বামীর লাঞ্চনা-গঞ্জনা আর নানান ষড়যন্ত্রের বলি হয়ে সততা, ন্যায়, নীতি আর আদর্শকে পুঁজি করে এগিয়ে যায় সুফিয়া। স্বীয় গুণাবলী আর সততার সাথে মোকাবেলা করতে থাকে একটার পার একটা পারিবারিক দুর্যোগ। 
দুঃখের সায়রে উদ্দেশ্যহীন ভাসতে থাকা সুফিয়া তারা মিয়ার সংসারে এক কঠিন ষড়যন্ত্রের মন্ত্র নিয়ে হাজির হয় তারা মিয়ার ব্যবসায়িক উপদেষ্টা ওরফে বন্ধু দুলাল। ফাঁদ পাতে মাকড়সার জালের মতো। 
“Harun Ar Rashid এর রিভিউ করা লেখক ইকবাল খন্দকার এর আরো দুটি বই”
তারা মিয়া নিজেকে আবিষ্কার করে বাস্তবতার এক কঠিন ভেলায়। চরম সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগতে থাকা তারা মিয়া, পুত্র আলী হোসেনের মুখে বাজান ডাক শোনার ব্যাকুলতায় দ্বিগবিদ্বিক ছুটতে থাকে। এভাবেই নানান ষড়যন্ত্র আর সরল সব সমীকরণের পথ ধরে এগিয়ে যায় বাজান গল্পের আখ্যান।
বাজান উপন্যাসটি মূলত বাঙালি পারিবারিক জীবনধারা অবলম্বনে একটি সরল ও স্নিগ্ধ কাহিনী। উপন্যাসটির সারল্য অতি সুন্দর। আদর্শ জীবনবোধের চিত্র হিসেবে এ বইটি এক উৎকৃষ্ট উদাহরণ। এ উপন্যাসটিতে জীবনের বাস্তব গল্পগুলো অতি সততা এবং সরলতার সাথে অঙ্কিত হয়েছে। 
স্নেহ, মায়া, মমতা, পরোপকার, উদারচিত্তের পাশাপাশি জীবনের গল্পে যে হিংসা, বিদ্বেষ ও নীচপ্রবৃত্তিরও পদচারণা রয়েছে, লেখক অত্যন্ত সুনিপুণভাবে বাজান গল্পে তা তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন।
পারিবারিক জীবনের ক্ষুদ্র ও সূক্ষ্ম বোধগুলো বাজান উপন্যাসে লেখক অত্যন্ত চমৎকারভাবে ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন। মনোরাম ও আদর্শ জীবনবোধের কথা, মনুষ্য সংসারের বিবিধ ঘটনা ও সংঘাত বইটিকে দিয়েছে আলাদা স্বকীয়তা। বিশ্বাস্য, সারল্য, একটি পরিচিত সংসারের হাসি-কান্না, জয়-পরাজয় অথবা দুর্যোগ ও সংকট বাজান উপন্যাসকে করেছে সমৃদ্ধ। 
সংসার জীবনে বিভিন্নভাবে বিপদ, পরীক্ষা বা দুর্যোগ আসতেই পারে। সে দুর্যোগ অতিক্রমের এক অনন্য দৃষ্টান্ত ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এ বইটিতে। ‘ধৈর্য্যের জয় সুনিশ্চিত’ মূলমন্ত্র বাস্তবায়নের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত বাজান উপন্যাসটি। প্রিয় পাঠক, আপনার চোখের সামনে ঘটে যাওয়া গ্রামীণ সমাজের বাস্তব চিত্র আর ‘বাজান’ ডাকের ব্যাকুলতায় এক পিতৃহৃদয়ের হাহাকারের সাথে জীবনঘনিষ্ঠ গল্পে নিজেকে বিভোর করার ইচ্ছে থাকলে নিঃসংকোচে পড়তে পারেন লেখক ইকবাল খন্দকারের লেখা জীবনঘনিষ্ঠ উপন্যাস ‘বাজান’। প্রত্যাশা, অাশাহত হবেন না।
সবশেষে একটা কথা না বললেই নয়। প্রকাশনার জগতে সুনামের সাথে শীর্ষস্থান ধরে রাখা বর্ষাদুপুর প্রকাশনীর ব্যানারে প্রকাশিত বইটির কাগজের মান, বাঁধাই আর প্রিন্টিং ছিল খুবই উন্নতমানের। সবচেয়ে ভালো দিক হলো, পুরো বইটিতে একটিও ভুল বানান ছিল না। মামুন হোসাইনের করা প্রচ্ছদটিও ছিল মন ছুঁয়ে যাওয়ার মতো।
বইপাও থেকে আপনি আর কি কি কন্টেন্ট পেতে চান?