February 26, 2024

𝘛𝘰 𝘓𝘰𝘷𝘦 𝘑𝘢𝘴𝘰𝘯 𝘛𝘩𝘰𝘳𝘯 : 𝘈𝘶𝘵𝘩𝘰𝘳 𝘌𝘭𝘭𝘢 𝘔𝘢𝘪𝘴𝘦

[𝟭𝟴+ 𝗘𝘅𝗽𝗹𝗶𝗰𝗶𝘁 𝗖𝗼𝗻𝘁𝗲𝗻𝘁 𝗪𝗮𝗿𝗻𝗶𝗻𝗴]

𝘉𝘰𝘰𝘬: 𝘛𝘰 𝘓𝘰𝘷𝘦 𝘑𝘢𝘴𝘰𝘯 𝘛𝘩𝘰𝘳𝘯
𝘈𝘶𝘵𝘩𝘰𝘳: 𝘌𝘭𝘭𝘢 𝘔𝘢𝘪𝘴𝘦
𝘎𝘦𝘯𝘳𝘦: 𝘈𝘥𝘶𝘭𝘵 𝘙𝘰𝘮𝘢𝘯𝘤𝘦
𝘗𝘦𝘳𝘴𝘰𝘯𝘢𝘭 𝘙𝘢𝘵𝘪𝘯𝘨: 2.5/5

ছোটবেলার ক্রাশকে কে না নিজের করে পেতে চায়? আর সেই ক্রাশ যদি একসময় হয়ে উঠে হলিউডের সফল হার্টথ্রব সুপারস্টার, আর সেই ছোটবেলার ভালোবাসা যদি এখনো থেকে যায়, তাকে কে দূরে ঠেলে দেয়?

অলিভের ক্ষেত্রেও তা ই ঘটে। ৭-৮ বছর বয়সি অলিভের বড় ভাই ডিল্যান তার প্রতিবেশি বন্ধু জেসনকে যেদিন তাদের বাসায় আনে, ছোট্ট অলিভ সেদিনই জেসনের গালে টোল পড়া হাসির প্রেমে পড়ে যায়। না বুঝেই প্রস্তাব করে জেসনকে বিয়ে করার।

১১ বছর বয়সি জেসনও হেসে উড়িয়ে দেয় ব্যাপারটা। তবে নিয়মিত আসা যাওয়া হওয়ায় জেসনও অলিভকে স্নেহ করে ডাকে “লিটল ওয়ান”। কিন্তু বয়স বাড়ার সাথে সাথে জেসনের প্রতি অলিভের দূর্বলতাটা রয়ে যায়। কিশোরী অলিভ লুকিয়ে নিজের মনের কথা প্রকাশ করতে গেলে নিজের অজান্তেই তার মন ভাঙ্গে জেসন।

এরপর আরো ৬-৭ বছর কেটে যায়। ভাঙ্গা পরিবারের ছেলে জেসন একসময় পাড়ি জমায় হলিউডে। চমৎকার অভিনয় আর সুদর্শন চেহারা তাকে যতটা বিখ্যাত করে তুলে, বিভিন্ন নারীঘটিত ঘটনার কারনে ততটাই তাকে নানান সমস্যায় জড়াতে হয়। আস্তে আস্তে হারাতে থাকে সিনেমার কাজের অফার।

অবশেষে তার ভঙ্গুর ক্যারিয়ারে মোড় ঘুরা‌তে আসে নতুন এক সিনেমার অফার। নতুন প্রকাশিত এক বইয়ের গল্প অবলম্বনে নির্মিত এই সিনেমার জন্য জেসনকেই বেছে নেয়ার কারন, সবার মতে বইয়ের মূল নায়ক চরিত্রটি যেনো জেসনকে ভেবেই লেখা হয়েছে।

আর ঘটনাচক্রে এতো বছর পর জেসনের দেখা হয় অলিভের সাথে। তার আপকামিং সিনেমা যে বইয়ের অবলম্বনে লেখা তার লেখিকা অলিভ।

এতো বছর পর জেসনকে সামনে পেয়ে আবারো মোমের মতো গলে যায় অলিভ। কারন জেসনের প্রতি তার ভালো লাগা একটুও কমেনি। কিন্তু এই জেসন তো তার ভাইয়ের বন্ধু জেসন না। সে এখন হলিউডের জেসন থ্রন।

যেখানে লাখো নারী ভক্ত তাকে পেতে পাগল সেখানে অলিভ কি তার চোখে পড়বে? নাকি সে জেসনের জন্য এখনো সেই ছোট্ট অলিভ, ডিল্যানের ছোট বোন?

তাদের এই সাক্ষাৎ শুরু হয় একজন লেখিকা ও তার বইয়ের উপর নির্মিত সিনেমার নায়ক হিসেবে। পাশাপাশি ছোটবেলায় পরিচিত ভালো বন্ধু হিসেবে। দুজনই সেভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলো।

কিন্তু সিনেমা জগৎ স্ক্যান্ডেলে ভরপুর জায়গা। বড় বড় সেলিব্রিটিদের জীবনচক্র যেনো সাজানো রুটিনের নানান নাটকে পরিপূর্ণ। এসবের মাঝেই এক অকল্পনীয় পরিস্থিতিতে পড়ে অলিভ আর জেসন।

কি হয় এরপর?

——————————

বইটি মোটেই কমবয়সী পাঠকদের জন্য না। গুডরিডেই ঘটা করে ওয়ার্নিং দেয়া। তাই চিজি, ক্লিশে ও এক্সপ্লিসিট ১৮+ (২০+ বলবো) বর্ননা পড়ে অপ্রস্তুত হয়ে যেতে পারে যারা এসব বইয়ে অভ্যস্ত না। অনেক বিশেষ শব্দের ব্যবহার রয়েছে এ বইয়ে।

তবে প্রসঙ্গ শুধু অভ্যস্তের জন্যও না। বইটির লেখনি খুবই আনকম্ফোর্টেবল লেগেছে। মনে হচ্ছিলো ৩৬৫ দিন মুভির ডন মাসিমো আর ফিফটি শেডসের আনা স্টিলকে একসাথে করে এই বই লেখা হয়েছে। কারন একটু পর পরই জেসন চরিত্র অলিভকে “little one” বলে সম্বোধন করছিলো যা চরম বিরক্তিকর লাগছিলো।

অলিভের চরিত্রটি অনেকটা চাইল্ডিশ মনে হয়েছে। জেসনও ডমিনেটিং ক্যারেক্টার। এছাড়া অন্যান্য চরিত্রগুলোও খুব একটা ভালো লাগেনি। গল্পের কিছু কিছু জায়গার কোন সন্তোষজনক ব্যাখ্যাও নেই।

তবে ভালো লেগেছে অলিভ আর জেসনের ক্যামিস্ট্রি। আর হলিউডে এই যে তারকা জুটি ও তাদের জীবনের নানান বিষয় আমরা দেখি, তার কতটুকু সত্য তা প্রশ্ন করতে বাধ্য করে বইটি।

অবশ্য আমরা অনেকেই জানি সেলিব্রিটিরা পাবলিসিটির জন্য বা আলোচনা সমালোচনায় থাকার জন্য অনেক কিছুই করে। তবুও, এভাবে বইয়ে হলিউড লাইফের একটা দিক তুলে ধরাটা অন্যরকম লেগেছে।

বইটির অর্ধেক পড়তে আমার দুই সপ্তাহের বেশি সময় লাগলেও পড়ের অংশ কয়েক ঘন্টায় শেষ করেছি। বইটি কেউ পড়তে চাইলে নিজ রিস্কে পড়তে পারেন। – Credit 💕 Rima Sarmin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *