February 27, 2024

হৃদয় জাগার জন্য – ইয়াসমিন মুজাহিদ

রিভিউ লিখেছেন: Shaiful Islam

ছোট বেলায় পরিক্ষার খাতায় প্রায়শ একটা কমন প্রশ্নের উত্তর দিতে হত আমাদের। সেটা হচ্ছে
“উক্ত গল্পের নামকরনের স্বার্থকতা লিখ” এই টাইপ একটা প্রশ্ন ৷

গতকাল একটা বই পড়েছিলাম, বইটা ইয়াসমিন মুজাহিদ নামে কায়রোতে জন্ম নেওয়া এক আপুর লেখা৷ লেখিকার পড়াশোনা এবং বেড়ে ওঠা দুটোই যুক্তরাষ্ট্রে৷ সেই সুবাদে বস্তুবাদের জালে আষ্টেপৃষ্টে জড়িয়ে যাওয়া মানুষগুলোকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন তিনি৷ বুঝতে চেষ্টা করেছেন তাদের জীবনে অস্থিরতার মূল কারণ।
কিভাবে মানুষ, সৃষ্টির সময় স্রষ্টার পক্ষ থেকে দিয়ে দেওয়া শুভ্র, নিষ্কলুষ হৃদয়টাকে এই দুনিয়ায় বাস করতে করতে খুইয়ে ফেলে।কিভাবে একটা সম্ভ্রান্ত আত্মার মালিক কদর্যতার অতল গহ্বরে নিজেকে হারিয়ে ফেলে।লেখক সে কথাগুলোই তুলে ধরেছেন বইটাতে।
পাশাপাশি তিনি হৃদয় জাগার জন্য খুলে দিয়েছেন সম্ভাবনার এক নতুন দুয়ার। আত্মশুদ্ধি, ইবাদাতে মগ্নতা ফিরে পাওয়া , জীবনের মানে খুঁজে পাওয়া,এইসবের জন্য যারা উদগ্রীব, তাদের জন্য বইটা হতে পারে শুকরিয়া আদায় করার মতো কিছু৷

রাসুল সঃ এর একটা প্রসিদ্ধ হাদিস আছে। হাদিসটা হচ্ছে _ আমাদের শরীরে একটা মাংসপিণ্ড আছে যদি সেটা ভালো/ সুস্থ থাকে তাহলে আমরাও সুস্থ থাকবো। আর যদি সেটা খারাপ/ অসুস্থ হয় তাহলে আমরাও খারাপ থাকবো৷ আর ঐ মাংসপিণ্ডটার নাম হচ্ছে ❝হৃদয় ❞।
এই বইটা আপনার সেই মাংসপিণ্ডের পরিশুদ্ধতার নিয়ামক হিসেবে ভালো কাজে দিবে বলে আমি মনে করি। লেখিকা আমাদের সবার যাপিত জীবনের কাছাকাছি কমন সমস্যাগুলোর ব্যাখ্যা করতে গিয়ে অসম্ভব মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়েছেন। বইয়ের প্রতিটি পরতে পরতে আপনার জন্য অপেক্ষা করবে নিজেকে পরিশুদ্ধ করার এক একটা নতুন অথচ অবশ্যই সম্ভবযোগ্য বিস্ময়কর পন্থা।

বইটির ইংরেজি নাম “reclaim your heart”। বাংলায় অনুবাদক যেটির নাম দেয়–“হৃদয় জাগার জন্য”।বইটাতে মোট ৩৭-৩৮ টি প্রবন্ধ আছে। বইটির প্রতিটি প্রবন্ধই বইয়ের নামের স্বার্থকতার সাক্ষর বহন করে৷

স্বভাবতই মাসুদ শরীফ ভাইয়ের অনুবাদ অসাধারণ। বরাবরের মতোই, এই বইটাতেও তিনি তাঁর অনুবাদ যোগ্যতার সাক্ষ্যর রেখেছেন। বইটা সম্পাদনা করেছেন আরেক প্রিয়, শাইখ আহমাদুল্লাহ হুজুর।

বইয়ের ভালো লাগার অসংখ্য লাইন থেকে কিছু লাইন…

• আমাদের হৃদয় যদি এমন কিছুর উপর নির্ভর করে, এমন এক সত্তার উপর নির্ভর করে যা অবিচল, তাহলে আমাদের হৃদয়ও হবে অবিচল। আর আমরা যদি এমন কিছুর উপর নির্ভর করি, যা নিজেই সবসময় বদলে যাচ্ছে, যা ক্ষণস্থায়ী, তবে আমরাও হব অস্থির, উত্তেজিত।

• আমরা চিরস্থায়ী কিছু খুঁজে ফিরি; কারণ, দুনিয়ার জীবনের জন্য তো আমাদের সৃষ্টি করা হয়নি।আমাদের প্রথম ও প্রকৃত বাড়ি হলো জান্নাত।ওটা যেমন নিখুঁত তেমনি চিরস্থায়ী। কাজেই এমন জীবনের স্বাদ খোঁজা আসলে আমাদের মানব প্রকৃতিরই একটি অংশ। সমস্যা হচ্ছে আমরা সেটা এই দুনিয়াতেই খুঁজি।

• আসক্তির মাত্রা যত বেশী, নিজের ধ্বংসের মাত্রাও তত বেশী।

• এই পৃথিবীতে জান্নাত আছে। যে তাতে প্রবেশ করতে পারল না, সে পরকালের জান্নাতেও প্রবেশ করতে পারবে না।

• দুনিয়া বিমুখতা মানে তুমি কিছুর মালিক হবে না তা নয়।এর মানে এখানের কোনো কিছু যেন তোমার মনিব না হয়ে যায় ৷

• সে-ই তো প্রকৃত বঞ্চিত, যে আল্লাহর অভাব কখনো বোধ করেনি।

• আমরা ভুলে যাই সালাত আদায় না করলে আত্মার মৃত্যু ঘটবে। অদ্ভুত ব্যাপার হচ্ছে, যে শরীরের প্রতি আমরা এত নজর দিই সেটা ক্ষণস্থায়ী, আর যে আত্মার চাহিদাকে আমরা উপেক্ষা করি সেটাই দীর্ঘস্থায়ী।

• পতনের অনেক রকমফের আছে। তবে সবচে বিষাদময় পতন হচ্ছে দ্বীন থেকে ছিটকে পড়া।

• দুনিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলা _ আমি আর মোটেও মিথ্যা সিংহাসনের সামনে দাঁড়ানো বিশ্বস্ত প্রজা নই।

• দুনিয়ায় আসক্তি থেকে মুক্ত হও। তাহলে আল্লাহ তোমাকে ভালোবাসবেন। আর মানুষের কাছে যা আছে তার আসক্তি থেকে নিজেকে মুক্ত করো, তাহলে মানুষ তোমাকে ভালোবাসবে৷

• আসলে মজার কথা হচ্ছে, যখন পাপের সাগরে হাবুডুবু খাচ্ছেন, তখনই তো আল্লাহর কাছে আরো বেশী করে ফিরে আসার সময়!

বই:- হৃদয় জাগার জন্য
লেখক: ইয়াসমিন মুজাহিদ
অনুবাদ: মাসুদ শরীফ
সম্পাদনা : শাইখ আহমাদুল্লাহ
গায়ের মূল্য : ২৫০
পৃষ্ঠা : ১৬৪
প্রকাশনী : সমকালীন প্রকাশন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *