February 25, 2024

শীত নামে পাহাড়ে – আলী রেজা

শীত নামে পাহাড়ে বইটি সৃজনশীল প্রকাশনা সংস্থা দূরবীণ থেকে প্রকাশিত হয়েছে। বইটির লেখক আলী রেজা। প্রচ্ছদ করেছেন মোস্তাফিজ কারিগর।

শীত নামে পাহাড়ে উপন্যাসটি প্রধান চরিত্র শহীদকে ঘিরে গড়ে ওঠে। সে কোনো এক শীতে বেরিয়ে পড়ে পাহাড়ের উদ্দেশ্যে। পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটির পাহাড়ি অঞ্চলে চলে যায় শহীদ। শহীদের মাধ্যমে লেখক সুন্দর, সাবলীল, চমকপ্রদ সব বর্ণনা দিতে থাকে পাহাড়ি প্রকৃতির। পাহাড়ের উঁচু নিচু পথ, এখানকার মানুষ, তাদের সংসার জীবনের গল্প এসবকিছু যেনো চোখের সামনে ভেসে ওঠে লেখকের লেখায়। একটা সময় শহীদের সাথে পাহাড়ি মেয়ে নীলাউ এর অন্তরঙ্গতা দেখা যায়। সে কাহিনি লেখক খুবই সুন্দর, সংযত ও আবেগের ছায়ায় ফুটিয়ে তুলেছেন কলমের কালিতে। তার বর্ণনায় উপন্যাসের আনন্দ, বেদনা, উচ্ছ্বাস, পাঠকের হৃদয় স্পর্শ করে যায়।

মূলত সমতলবাসী শহীদ ও পাহাড়ি মেয়ে নীলাউয়ের মধ্যকার ভালোবাসা এবং তার পরবর্তী বেদনাদায়ক পরিণতি উপন্যাসের মূল জায়গাটা দগলে নিয়েছে। নীলাউয়ের প্রেমে পাগল শহীদ ঢাকা ফিরে এসে আবার নীলাউয়ের কাছে ফিরে আসে। এর পরবর্তীতে তাদের যে প্রতিকূলতা, বাধা বিপত্তি ও শেষমেশ শহীদের করুণ পরিণতি এসবকিছুর সাথে পাহাড়ি জীবনকে একই চাদরে এনে এক অসাধারণ আবহ সৃষ্টি করেছেন লেখক আলী রেজা। সহজ সুন্দর গল্পকে লেখক খুব যত্ন সহকারে তার সুনিপুণ বর্ণনায় চমকপ্রদ-আকর্ষণীয় করে তুলেছেন।

একজন পাঠক বইটি পাঠ করার সময় হারিয়ে যাবেন পাহাড়ে মায়ায়। সেখানের মানুষের সরলতা, তাদের জীবিকার যুদ্ধ পাঠকের হৃদয়কে করবে আন্দোলিত। একজন পাঠক হিসেবে মূল চরিত্রের স্থলে নিজেকে খুঁজে পাওয়াটাই একজন লেখকের সবচেয়ে বড় স্বার্থকতা বলে আমি মনে করি। আর এই কাজটাই লেখক আলী রেজা চমৎকারভাবে করেছেন। বইটা পড়ার সময়ে পাহাড়ি অঞ্চলের বর্ণনা এমনভাবে দেয়া আছে যাতে করে চোখের সামনে ভেসে উঠে সবকিছু।

লেখক আলী রেজার একমাত্র উপন্যাস শীত নামে পাহাড়ে বইটি। তিনি ফাইন আর্টসে স্নাতক করেছেন। ফটোগ্রাফি, ফিল্ম এডিটর, মূর্তি গড়া, নাচ প্রভৃতি বিষয়ে পারদর্শী ছিলেন আলী রেজা। ১৯৮০ সালে আকস্মিক মৃত্যুর কারণে এই মেধাবী লোকটির সকল সৃজনশীলতার পরিসমাপ্তি ঘটে।

পরিশেষে বলতে হয়, লেখক আলী রেজা একজন মেধাবী লেখক ছিলেন। এটা তার একমাত্র উপন্যাস হওয়াটা আমাদের জন্য দুঃখের বিষয়। তার একাধিক সৃষ্টি না থাকা আমাদেরকে দারুণ কিছু পাওয়া থেকে বঞ্চিত করেছে।

বইয়ের চমৎকার প্রচ্ছদটি করেছেন মোস্তাফিজ কারিগর। দারুণ একটা প্রচ্ছদ করেছেন তিনি। আর দূরবীণের প্রোডাকশন ছিল টপ লেভেলের। যেখানে কোনো ধরনের সমালোচনার সুযোগই নেই।

ব্যক্তিগত রেটিং ৪.৫/ ৫

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *