February 27, 2024

দ্য মিডনাইট লাইব্রেরি – ম্যাট হেইগ।

 

বইয়ের নাম ~ দ্য মিডনাইট লাইব্রেরি।
লেখক ~ ম্যাট হেইগ।
অনুবাদ ~ মাহীনূর মীম, এম. এস. আই সোহান।
প্রকাশনী ~ ভূমি প্রকাশ।
প্রথম প্রকাশ ~ আগস্ট ২০২১।
প্রচ্ছদ ~ সজল চৌধুরী।
মূল্য ~ ৩৬০ টাকা।
পৃষ্ঠা সংখ্যা ~ ২৪০।

অসম্পূর্ণ জীবন,
অসম্পূর্ণ মৃত্যু!
কি ভয়াবহ লাইন, তাইনা!!!

ধরুন আপনি আত্মহত্যা করলেন, কিন্তু আপনি মারা গেলেন না, বরং জীবন আর মৃত্যুর মাঝামাঝি একটা সময়ে চলে গেলেন, যেখানে আপনার জন্য অপেক্ষা করছে বিষ্ময়কর কিছু, কেমন হবে ব্যাপারটা ?

গল্পটা নোরার, নোরা সিড, জীবনের ওপর ভীষণরকম হতাশ একজন তরুণী। জীবনের আক্ষেপের খাতাটা বেশ ভারী। বাবামার স্বপ্ন, ভাইয়ের স্বপ্ন, বন্ধুর স্বপ্ন, কিছুই সে পূরণ করতে পারেনি, আর না পেরেছে নিজের স্বপ্নকে খুঁজে বের করতে।
” কয়লা আর হীরা দুটোই কার্বন হলেও কয়লা এতো অবিশুদ্ধ যে এটাকে কোনও প্রকার চাপেই হীরাতে পরিণত করা সম্ভব না, বিজ্ঞান অনুযায়ী তুমি কয়লা হিসাবে জীবন শুরু করলে জীবনের শেষে গিয়েও কয়লাই থাকবে। হয়তো এটাই আসল জীবনের শিক্ষা? ”
আসলেই কি তাই?
হতাশা একটা ভয়াবহ ব্যাধির মতো যা আস্তে আস্তে তার ডালপালা মেলতে থাকে। যদি তুমি তাকে প্রশ্রয় দাও সে তোমাকে শুষে নিবে। হতাশার তীব্রতা নোরাকে এতোটাই আঁকড়ে ধরে যে সে নিজের জীবনকে শেষ করে ফেলার চরম সীদ্ধান্ত নিয়ে নেয়।
কিন্তু কোনও এক বিস্ময়কর কারণে সে জীবন আর মৃত্যুর মাঝামাঝি একটা সময়ে চলে যায়, যেখানে সে সন্ধান পায় ‘মধ্যরাতের লাইব্রেরির’। যার প্রতিটা বইয়ের রং সবুজ। যেখানে আছে নোরার না পাওয়া অনেক জীবনকে উপভোগ করার সুযোগ। আসলেই কি না পাওয়া জীবনগুলো বেশি সুন্দর? সে জীবনগুলোতে কি প্রকৃত সুখী হতে পারবে নোরা?
সেটি জানতে হলে পড়ে ফেলতে হবে বইটা।

পছন্দের উক্তি ~
🌼আত্মবিশ্বাসের সাথে তোমার স্বপ্নের দিকে এগিয়ে যাও, জীবনটা যেভাবে কল্পনা করেছ সেভাবে উপভোগ করো।
~ থরো।

🌼 আমি জানিনা আমার আগ্রহ কোথায়, তবে কোথায় আমার আগ্রহ নেই সেটা খুব ভালো করে জানি।

🌼 কখনও এমন কাউকে বিশ্বাস করবে না যে অকারণে নিম্ন আয়ের মানু্ষের সাথে দূর্ব্যবহার করে।

🌼 সবকিছু হওয়ার জন্য যে আমাদের সবকিছু করতে হবে তা নয়, কারণ আমরা এমনিতেই অসীম। বেঁচে থাকা মানেই আমরা সবসময় বর্ণালী সম্ভাবনার ভবিষ্যৎ মুঠোয় নিয়ে রেখেছি।

অনুভূতি ~
এই বইটা পড়তে গিয়ে আমি বিপরীতধর্মী অনুভূতির শিকার হয়েছি। হয়তো আমি নিজের জীবনের সাথে নোরা সিডের জীবনের অসম্ভব রকম মিল খুঁজে পেয়েছি সেজন্য!

পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ংকর অনুভূতি সম্ভবত জীবনে কিছু সুযোগ পেয়েও সেগুলো নষ্ট করা। এই বইয়ে নোরার আক্ষেপ গুলো আমি অন্তর থেকে অনুভব করেছি।
জীবন ভীতি বেশ জটিল কথা। তোমার জীবন যদি নষ্ট হয়, তুমি যাই করো না কেন সেটা নষ্টই হবে!
বইটা পড়তে গিয়ে আমি আমার জীবনের সবচেয়ে তিক্ত এবং কষ্টদায়ক সত্যিটা উপলব্ধি করেছি, আমি সবার স্বপ্নের ভীড়ে নিজের স্বপ্নটাই হারিয়ে ফেলেছি। আবার এই বইয়ের শেষাংশ থেকে আমার প্রশ্নের উত্তরও খুঁজে নিয়েছি।
জীবনে উচ্চাকাঙ্খা আর সেগুলো করতে না পারা নিজের প্রতি একরকম বিতৃষ্ণা এনে দেয়, তখন মানুষ নিজেকে সবকিছুর অযোগ্য ভাবতে শুরু করে। যেটা হতাশার অন্যতম ধাপ। নোরার ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা তাই হয়েছে। সবমিলিয়ে ব্যক্তিগতভাবে বইটা আমার ভীষণ ভালো লেগেছে।

অনুবাদ ~
জানিনা কেন অনুবাদের ধরনটা আমার ভালো লাগেনি। কেমন খাপছাড়া, অগোছালো কিছুটা। যদি এটা একান্তই আমার ব্যক্তিগত অভিমত।

প্রচ্ছদ ~
বইয়ের প্রচ্ছদ বেশ আকর্ষণীয়। কাহিনীর বইগুলোর মতো এ বইয়ের রংটাও সবুজ, গাড় সবুজ।

রেটিং ~ কাহিনী আর প্রচ্ছদ ৯/১০, অনুবাদ ৬/১০।
বইটি ২০২০ সালে গুডরিডস সেরা ফিকশন অ্যাওয়ার্ড জিতেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *