February 25, 2024

জ্যোৎস্নায় বর্ষার মেঘ – সমরেশ মজুমদার

বই: জ্যোৎস্নায় বর্ষার মেঘ
ধরন: পশ্চিমবঙ্গের উপন্যাস
লেখক: সমরেশ মজুমদার
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ১২৮

স্কুল শিক্ষক কমলাকান্ত চট্টপাধ্যায়ের বড় মেয়ে অবন্তী সেবার এমএ পাশ করে। সাহিত্যানুরাগী পিতা তার সাহিত্যানুরাগী কন্যা অবন্তীকে নিয়ে একদিন
শান্তিনিকেতনে ঘুরতে যায় এবং সেখান থেকে ফিরে আসার রাত্রেই হার্ট অ্যাটাকে কমলাকান্ত চট্টপাধ্যায় মারা যান। সংসারের জন্য সঞ্চয় বলতে কিছুই রেখে যেতে পারেন নি কমলাকান্ত চট্টোপাধ্যায় ফলে তার মৃত্যুতে গভীর অন্ধকারে ছেয়ে যায় তার পরিবার। পরিবারের বড় সন্তান হিসেবে পরিবারের দায়িত্ব চাপে অবন্তীর কাঁধে। মা ও নাবালক দুটি ভাই এবং সংসারের চাপে অবন্তীর মাথায় যেন আকাশ ভেঙে পড়ে। ভেঙে পড়া আকাশটাকে দুহাতে ঠেলে ধরে অবন্তী নেমে পড়ে জীবনযুদ্ধে। মোকাবেলা করতে হয়ে নানান ঘাত-প্রতিঘাত কিন্তু যেন নিস্তার নেই কোনো ।
বাবার স্কুলের সহকর্মী স্বর্ণেন্দুকে ভালবেসেছিল‌ অবন্তী। সপ্ন দেখেছিল ঘর বাঁধার । তার বাবাও চেয়েছিলেন তারা ঘর বাধুক। কিন্তু অবন্তীর মা বারংবার দারিদ্র্যপীড়িত সংসারের ছবিটাকে দেখিয়ে অবন্তীকে বিয়ে করতে দেননি। এভাবেই অবন্তীর জীবন থেকে এক সময় হারিয়ে যায় স্বর্ণেন্দু। একটার পর একটা চাকরি বদল করতে করতে অবন্তীর জীবন থেকে হারিয়ে যায় বহু বসন্ত। কোন বসন্তই কি তার পুষ্পার্পিত সৌন্দর্য নিয়ে হাজির হবেনা অবন্তীর জীবনে? এই বাধ্যবাধকতার জীবন কতকাল অবন্তীকে বয়ে যেতে হবে ?

প্রতিক্রিয়াঃ আমার পড়া অন্যতম সেরা একটি উপন্যাস ‘জ্যোৎস্নায় বর্ষার মেঘ’। বইটিতে লেখক চমৎকারভাবে টেনে এনেছেন সামাজিকতা, পারিবারিক দ্বায়বদ্ধতা এবং ভালোবাসার এক কঠিন পরীক্ষা। এক সংগ্রামী নারীর মাধ্যমে লেখক আমাদের কিছু নির্মম বাস্তবতার মুখোমুখি নিয়ে যান যেখানে থেকে আমরা জীবন সংগ্রাম, সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা, আত্মত্যাগ এবং দূর থেকে ভালোবাসতে পারার ক্ষমতাটা উপলব্ধি করতে পারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *