February 21, 2024

গডফাদার – আমিনুল ইসলাম

 

বইয়ের নাম- গডফাদার
লেখক- আমিনুল ইসলাম
প্রচ্ছদ- আদনান আহমেদ রিজন
সম্পাদনা- তাহমিদ রহমান
প্রকাশনী- সতীর্থ
মুদ্রিত মূল্য- ২৮০ টাকা
প্রথম প্রকাশ- অক্টোবর,২০২১

কাহিনী সংক্ষেপঃ
সাধারণ ঘরের খুব সাধারণ একটা ছেলে মাসুদ কবির। ছোটবেলা থেকেই তার সাথে অনেক খারাপ ঘটনা ঘটে, ফলে দুনিয়ার প্রতি তার ধারণা বদলে যায়। বিশ্ব বিদ্যালয়ে পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেই জড়িয়ে পড়ে অন্ধকার জগতের সাথে। মা-বাবা হারা মাসুদের প্রিয় বন্ধু রুদ্রর মা যখন অসুস্থ হয় তখন সে কিড’ন্যাপিং করে। সেই টাকা দিয়ে রুদ্রর মায়ের চিকিৎসা করাই আর রুদ্রর নামে একটা রেস্টুরেন্ট করে রুদ্রর জীবন দাঁড় করিয়ে দেয়। এরপর আরো অনেক অ’নৈতিক কাজ করে মাসুদ। আগামী দশ বছর সে কি করবে সব লিখে রেখেছিল। দুই বছর তার প্ল্যান মাফিক সব চললেও তারপর মাসুদের জীবনে আসে অনন্যা। মাসুদ সব ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার স্বপ্ন দেখে। ঠিক তখনই অনন্যা তার সব স্বপ্ন ভেঙে দেয়। এবার মাসুদ আরো খারাপ ভাবে ফিরে আসে অন্ধকার জগতে। একের পর এক হঠকারী ঘটনা ঘটতে থাকে দেশে। এমন সময় মাসুদকে মা’রতে ফিরে আসে মাফি’য়া ত্রাস দাউদ খলিল- দ্য গডফাদার কিলার। ওদিকে জে’ল থেকে বের হওয়া অর্ক, মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা আব্রাহাম রাতুল; দুজনেরই লক্ষ্য হয়ে যায় অদৃশ্য শক্তির উৎসকে খুঁজে বের করা। যার কারণে তছনছ হয়ে গেছে অর্কর জীবন, যে কিনা পুরো দেশে বিছিয়ে রেখেছে অদৃশ্য এক জাল। রাতুল আর তার টিম সফল হয় মাসুদ কবির আর তার দলের সবাইকে মারতে। মারা যাওয়ার আগে মাসুদ কবির বলে যায় ”দ্য ডেভিল ইজ ফ্রি নাউ” তারপরই একের পর এক বড় অফিসাররা গায়েব হয়ে যান। থমথমে হয়ে যায় দেশের পরিবেশ। মাসুদ যদি মারাই যায় তবে কে ঘটাচ্ছে এসব?

পাঠ প্রতিক্রিয়াঃ
গডফাদার সিরিজের প্রথম বই বাটারফ্লাই ইফেক্ট পড়ার সময় ভাবিনি মাসুদ কবির চরিত্রটাকে আদৌ ভালো লাগবে। বাটারফ্লাই ইফেক্টে মাসুদকে মাত্র একবারই দেখা গেছে এবং মনে হয়েছে কে এই ব্যক্তি? আর এই কারণেই গডফাদার পড়ার আগ্রহ দ্বিগুণ বেড়ে গেছিল। বইটা পড়ে দারুণ লেগেছে এবং মাসুদ কবিরকেও ভালো লেগেছে। টুকটাক বানান ভুল বাদে বইটা বেশ আরামেই পড়েছি। অর্ক,রাতুল,মৃদুলাদের উপস্থিতি আরো বেশি আশা করেছিলাম। তবে পরের পার্ট আসলে নিশ্চয় ওদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকতো। বইটা শেষ হবার পরেও একটা প্রশ্ন থেকেই যায়, মাসুদের কি হলো? সেজন্য বই শেষ হবার পর থেকেই পরের পার্টের অপেক্ষায় ছিলাম। ”দ্য শ্যাডো” তো আর আসার সম্ভাবনা নেই। তাই এখন মাসুদ কবির আত্মগোপনে আছে ভেবে নিজেকে স্বান্তনা দিচ্ছি। এই সিরিজটা আর রিপ্রিন্ট হবে না জেনে যেমন আফসোস হচ্ছিল সেই সাথে এটা ভেবেও ভালো লাগছিল যে সিরিজটা আমি পড়তে পেরেছি। ক্রাইম থ্রিলার পছন্দ করলে সিরিজটা পড়ে দেখতে পারেন ভালো লাগবে আশা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *