February 25, 2024

একজন নিকৃষ্টতমা লেখিকাঃ মনিকা জাহান চৌধুরী

বইয়ের নামঃ একজন নিকৃষ্টতমা
লেখিকাঃ মনিকা জাহান চৌধুরী
জনরাঃ সামাজিক উপন্যাস
প্রকাশনীঃ অনুজ প্রকাশন
প্রকাশকঃ আশরাফুল ইসলাম
প্রচ্ছদঃসজিব ওয়ার্সী
প্রচ্ছদ মুল্যঃ২০০

“একজন নিকৃষ্টতমা” নাম শুনেই কারো স্বার্থপরতা, কিংবা কারো ঠকানোর কথা মাথায়। উপলব্ধি হয় কারো ছেড়ে যাওয়া, কিছু কেড়ে নেওয়ার বিষয়। উপন্যাসের নাম শুনলেই পড়তে ইচ্ছে করে। আকৃষ্ট করে বইটির প্রতি।

এই একজন নিকৃষ্টতমা নামক গল্পের প্রধান চরিত্র কি আসলেই একজন নিকৃষ্টতমা নাকী এর পেছনে আছে ভিন্ন কাহিনী? জানতে হলে পড়তে হবে বইটি।

লেখক পরিচিতিঃ মনিকা জাহান চৌধুরী। তবে কুইন নামেই তাকে মানায় বেশি। দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ থানার পলাশবাড়ী গ্রামে জুলাইয়ের ৯ তারিখ কুইনের জন্ম। একজন নিকৃষ্টতমা লেখিকার ৩য় প্রকাশিত উপন্যাস । লেখিকার প্রথম গল্পগ্রন্থ “প্রতিশ্রুতি ” ২০২০ সালে এবং ২০২১ সালে প্রকাশিত হয় প্রথম উপন্যাস “এক পেয়ালা জীবন”।
লেখালেখি ও পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে যুক্ত।

উপন্যাসের চরিত্রঃ
অনুপমা,
আবির,
অন্তু,
অরু,
অগ্নি,
অনুর বাবা,
অনুর মা আরো অনেকে।

🔷গল্প কাহিনিঃ অনু যার নাম অনুপমা।সবাই অনু বলেই ডাকে। অনুর ভাই আবির।অনুর মা বাবা আলাদা থাকেন। অনুর বাবা ভালবেসে অনুর মায়ের নামে সমস্ত সম্পত্তি লিখে দেন, কিন্তু হঠাৎ করে একদিন অনুর মা আবির কে নিয়ে চলে যায় এবং অন্য একজনকে বিয়ে করে নেয়। অনু থাকে বাবার সাথে। অনুর বাবা আরেকটি বিয়ে করেন সে ঘরে জন্ম নেয় অন্তু। কিন্তু অন্তুর মা সংসারে অভাব দেখে সন্তানকে রেখে চলে যায়। অপরদিকে অনুর মা যে নতুন বিয়ে করে সে ঘরে জন্ম নেয় আরেকটি সন্তান অরু। অনুর মা সেই সন্তান এবং নতুন স্বামীকেও ত্যাগ করে আবার বিয়ে করে চলে যায়। এদিকে অনু,আবির,অন্ত,অরু সবার একমাত্র ঠিকানা অনুর বাবা। যিনি কোনমতে কষ্টে সন্তানের লালন করতে থাকে।
অনুর বিয়ে হয়ে যায় একজনের সাথে। বিবাহিত জীবন অনুর সুখের হয়না, স্বামী পরনারীতে আসক্ত। সন্তান জন্ম দিতেই অনুর মৃত্যু হয়, অনুর মেয়ে অগ্নি।

অগ্নির দায়িত্ব কে নিবে? অনুর মা কেন এমন নিকৃষ্ট আচরণ করেছিলো তাদের সাথে। তার কারণ কি প্রকাশ পাবে? আবির,অন্তু,অরু এদের জীবনে কি পাওয়ার খাতা খালি থাকবে, নাকি এরাও পূর্ণতার দেখা পাবে? সব প্রশ্নের উত্তর মিলবে একজন নিকৃষটতমা বইটিতে।

ভালো লাগা কিছু উক্তিঃ

আমি,তুমি এবং তোমরাও একা। প্রচন্ড রকম একা। আসলে আমরা সবাই একা।

ছেলেদের কাদঁতে হয় না। যে ছেলে অল্পতেই কাদেঁ,সে সমাজের কাছে কাপুরুষ ।

পতি পরম পূজনীয় প্রেমের সাধন। কেউই বুঝিবে না এই সাধিত সুখের মায়ার দাম। কেবলই নারী জানেন এই সাধনার মায়া।

পৃথিবীতে বাবারা হয় অসহায়ত্বের পথিক। বাবাদের কাদঁতে নেই। বাবারা কাদঁলে পুরো পৃথিবী যেন থমকে যায়।

এই সৃষ্টিশীল দুনিয়ায় কোনোকিছুই আপনা-আপনি ঘটে না মৃত্যু আর জন্ম ব্যতীত। বাকী যা কিছু তা কেউ না কেউ ঘটায়।

আমার অনুভূতিঃ ব্যক্তিগতভাবে “একজন নিকৃষ্টতমা” বইটি লেখিকা মনিকা জাহান খুব সুন্দর করে যত্নের সহিত লিখেছেন বলে আমি মনে করি। বইটি আমার হৃদয় ছুঁয়েছে। কেড়ে নিয়েছে মন। “একজন নিকৃষ্টতমা” বইটি সত্যি অসাধারণ একটি উপন্যাস।

ব্যাক্তিগত রেটিংঃ৯/১০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *